ঢাকা, বুধবার, ২৩ মে ২০১৮, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

পুঁজিবাজারে আসার আগেই বিবিএস কেবলসের রেকর্ড!

২০১৭ জুলাই ৩০ ১৮:০৭:৫৬
পুঁজিবাজারে আসার আগেই বিবিএস কেবলসের রেকর্ড!

পুঁজিবাজারে আগামীকাল সোমবার (৩১ জুলাই) লেনদেন শুরু হতে যাওয়া বিবিএস ক্যাবলস লিমিটেডের প্লেসমেন্ট শেয়ারের পরিামণ দেখে বিনিয়োগকারীরা রীতিমত হতভম্ব। কোম্পানিটিতে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের( আইপিও) মাধ্যমে দুই কোটি শেয়ার ইস্যু করেছে। কিন্তু কোম্পানিটি পাবলিক প্লেসমেন্ট হিসাবে আরও ৫ কোটি ৮ হাজার শেয়ার ইস্যু করেছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ওয়েবসাইটে কোম্পানিটির প্রোফাইলে মোট শেয়ার সংখ্যা দেখানো হয়েছে ১২ কোটি। এর মধ্যে স্পন্সর/পরিচালকদের ৩৩.৩৩ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ৮.৩১ শতাংশ, বিদেশি ০.০২ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের অংশে দেখানো হয়েছে ৫৮.৩৪ শতাংশ। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের অংশে আইপিও ২ কোটি শেয়ারের সাথে পাবলিক প্লেসমেন্ট এসেছে ৫ কোটি ৮ হাজার শেয়ার।

অতীতে দেখা দেখা গেছে, সাধারণত প্লেসমেন্ট শেয়ারের পরিমাণ আইপিও শেয়ারের কাছাকাছি হয়। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বেশিরভাগ কোম্পানির প্লেসমেন্ট শেয়ার আইপিও শেয়ারের সমপরিমাণ বা কাছাকাছি ছিল। কিন্তু আইপিও শেয়ারের তিনগুণ প্লেসমেন্টের খুব একটা নজির নেই। বিবিএস কেবলস পুঁজিবাজারে আসার আগেই সেই রেকর্ড সৃষ্টি করল।

এ বিষয়ে কোম্পানি সচিব মো: নাজমুল হাসান জানান, বিবিএস ক্যাবলস পুঁজিবাজারে ২ কোটি শেয়ার ছেড়েছে। এর মধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের ৮.৩১ শতাংশ এবং বিদেশি ০.০২ শতাংশ। অবশিষ্ট শেয়ার সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মধ্যে বরাদ্দে করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ডিএসই’র প্রোফাইলে যে ৫৮.৩৪ শতাংশ বা ৭ কোটি ৮ হাজার শেয়ার দেখানো হচ্ছে সেটা মূলত সাধারণ বিনিয়োগের আইপিও শেয়ার ও প্লেসমেন্ট শেয়ারের যোগফল দেখানো হয়েছে। তিনি বলেন, সাধারণ বিনিয়োগকারীদের অংশে যে পরিমাণ শেয়ার রয়েছে সেটা ঠিকই রয়েছে। বাকিগুলো প্লেসমেন্ট শেয়ার। তাই এ নিয়ে বিনিয়োগকারীদের বিভ্রান্তি হওয়ার কোনো কারণ নেই।

কিন্তু বিনিয়োগকারীদের এ বিষয়ে হয়তো বিভ্রান্ত হওয়ার কারণ নেই। কিন্তু হতভম্ব হওয়ার সংগত কারণ রয়েছে। কারণ প্লেসমেন্ট শেয়ারগুলো নির্ধারিত সময় পরে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের উপরই চাপানো হবে। তখন প্লেসমেন্ট বিনিয়োগকারীরা বিশাল লাভ নিয়ে বাজার থেকে সটকে পড়বেন। চড়া লাভে বাজারে তাদের শেয়ার অফলোড করে দেবেন। অতীতে দেখা গেছে, প্লেসমেন্ট শেয়ারধারীদের সিংহভাগই বাজার সংশ্লিষ্ট নয়। তারা মৌসুমী ব্যবসায়ীর মতো। সুযোগ পেয়েছে, লাভ তুলে নিয়েছে। আর প্লেসমেন্টধারীরা সাধারণত কোম্পানির উদ্যোক্তাদের আ্ত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবই হয়। তারা পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট নয়। বিনিয়োগকারীরা কোম্পানিটির বিশা্ল অংকের প্লেসমেন্ট শেয়ার দেখে হতাশা ব্যক্ত করছেন।

সংবেদনশীল তথ্য এর সর্বশেষ খবর

উপরে