ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ আগস্ট ২০১৮, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৫

বাজারে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু্ নেই!

২০১৭ জুলাই ১২ ২০:২৪:৫১
বাজারে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু্ নেই!

টানা কয়েকদিন দেশের উভয় পুঁজিবাজার উত্থানে থাকার পর আজ বুধবার মূল্য সংশোধনে ফিরে আসে। এদিন শুরুতে ক্রয় চাপ থাকলেও কিছুক্ষণ পরই বাজারে বিক্রয় চাপে পড়ে যায়। প্রথম ঘন্টা পর বিনিয়োগকারীদের সক্রিয়তায় আবার বাজার ঘুরে দাঁড়ায়। আজ লেনদেন শুরুর প্রথম দেড় ঘন্টায় সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। ফলে সূচক পতনের সাথে সাথে টাকার অংকে লেনদেনের পরিমাণও আগের দিনের তুলনায় কমেছে।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পুঁজিবাজারে সূচক বাড়ছে, লেনদেন বাড়ছে। বাড়ছে মানুষের আস্থা ও আনাগোনা। অনেক নতুন বিনিয়োগকারী বাজারমুখী হচ্ছেন। বড় বড় বিনিয়োগকারী বড় অঙ্কের বিনিয়োগ নিয়ে বাজারে আসছেন।

তাঁদের মতে, গত এক মাস যাবৎ বাজারে সূচক বেড়েছে। বেড়েছে লেনদেনও। পাশাপাশি মানুষের আস্থাও বেড়েছে। আর এ আস্থা ধরে রাখতে হবে। বিনিয়োগকারীদের ধরে রাখার পাশাপাশি বর্তমান বাজারের গতি ধরে রাখতে হলে রেগুলেটরদের সচেতন থাকতে হবে। বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে কাজ করতে হবে। কোনোভাবেই যাতে বাজারে আতঙ্ক তৈরি না হয়, সেদিকে কড়া নজর রাখতে হবে। পাশাপাশি নতুন বিনিয়োগকারীরা যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।


বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, পুঁজিবাজারে উত্থান-পতন স্বাভাবিক ঘটনা। বাজার শুধু বাড়বে, কমবে না--এটা ভাবা ঠিক নয়। সেজন্য পুঁজিবাজারে আবেগতাড়িত বিনিয়োগ থেকে বিরত থাকুন। গুজব থেকে দূরে থাকতে হবে, বন্ধু-বান্ধবের ভুয়া খবর থেকে দূরে থাকতে হবে। তাঁদের মতে, আগামীকাল থেকেই বাজার ঘুরে দাঁড়াতে পারে। আগামী সপ্তাহে বাজারে আবারও চাঙগাভাব ফিরে আসবে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, আজ দুপুর ১২টায় ডিএসই ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৭ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৫৮৩৮ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৩২৪ পয়েন্টে এবং ডিএসই৩০ সূচক ৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ২১২৯ পয়েন্টে। এ সময় লেনদেন হওয়া ৩১৮টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৭১টির, দর কমেছে ৯৪টির এবং দর অপরিবর্তীত রয়েছে ৫৩টির। এ সময় টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ৩৩৩ কোটি ৫৬ লাখ ৫২ হাজার টাকা।

অথচ এর আগের কার্যদিবস অর্থাৎ মঙ্গলবার দুপুর ১২ টায় ডিএসই ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৩০ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ৫৮৫৭ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৬ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ১৩২৫ পয়েন্টে এবং ডিএসই৩০ সূচক ১১ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ২১৩৩ পয়েন্টে। এ সময় টাকার অংকে লেনদেন হয়েছিল ৬২২ কোটি ১০ লাখ ৮৫ হাজার টাকা।

অন্যদিকে, দুপুর ১২টায় চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক আগের দিনের চেয়ে ১৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৮ হাজার ৯৫ পয়েন্টে। এ সময় লেনদেন হওয়া ১৯৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৯৯টির, দর কমেছে ৭৫টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার দর। আলোচিত সময়ে টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ২০ কোটি ৯৫ লাখ ৭৩ হাজার টাকা।

শেয়ারবার্তা/শহিদুল ইসলাম

সংবেদনশীল তথ্য এর সর্বশেষ খবর

উপরে