ঢাকা, বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬

আইপিও শিকারীদের রাজত্ব তছনছ !

২০১৯ জুন ০৮ ১৭:৪১:৩৭
আইপিও শিকারীদের রাজত্ব তছনছ !

আইপিও বিধান সংশোধনের প্রস্তাব কার্যকর হলেও দেশের প্রাইমারি ও সেকেন্ডারি শেয়ারবাজারে ভারসাম্য ফিরবে বলে মনে করছেন শেয়ারবাজার-সংশ্নিষ্ট ও বিশ্নেষকরা। তাদের মতে, ব্যক্তিপর্যায়ের মতো গত কয়েক বছরে প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়েও অনেক আইপিও 'শিকারি' সৃষ্টি হয়েছে। নতুন বিধানে তাদের দৌরাত্ম্য কমবে। তছনছ হয়ে পড়ছে আইপিও শিকারীদের রাজত্ব। একই সঙ্গে প্রাথমিক শেয়ারের প্লেসমেন্ট বাণিজ্যেও লাগাম পড়বে।

গত ২৯ মে আইপিও বিধানের গুরুত্বপূর্ণ কিছু সংশোধনের জন্য খসড়া প্রস্তাব চূড়ান্ত করে শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি। গতকাল সোমবার তা জনমত যাচাইয়ের জন্য প্রকাশ করা হয়েছে। আগ্রহীদের আগামী ১৭ জুনের মধ্যে মতামত পাঠাতে বলেছে সংস্থাটি। জনমত যাচাইয়ে ১৫ দিন সময় দেওয়া হলেও ঈদের ছুটির কারণে আগ্রহীরা মতামত পাঠাতে মূলত এক সপ্তাহ সময় পাবেন।

সংশোধন প্রস্তাবে বলা হয়েছে, সেকেন্ডারি বাজারে নূ্যনতম বিনিয়োগ না থাকলে কোনো প্রতিষ্ঠান প্রাইমারি অর্থাৎ আইপিও শেয়ার কেনার যোগ্য হবে না। একই সঙ্গে আইপিওর নির্দিষ্ট মূল্য ও বুক বিল্ডিংয়ে প্রাতিষ্ঠানিক কোটা ১০ শতাংশ কমিয়ে তা সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। জানতে চাইলে ডিএসইর পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমন বলেন, আইপিও 'শিকারি'দের মতো অনেক প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী শুধু প্লেসমেন্ট ও আইপিও শেয়ারের ব্যবসা করছেন। বিএসইসি বিষয়টি সঠিকভাবে অনুধাবন করে এ সংশোধন প্রস্তাব এনেছে। এতে সার্বিকভাবে পুরো শেয়ারবাজার উপকৃত হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

ডিএসইর ব্রোকারদের সংগঠন ডিবিএর সভাপতি শাকিল রিজভী বলেন, গত কয়েক বছরে কিছু কোম্পানি ৫০ থেকে ১০০ কোটি টাকার প্লেসমেন্ট শেয়ার বিক্রির পর তালিকাভুক্ত হতে আইপিওতে নামমাত্র ১৫ থেকে ২০ কোটি টাকার শেয়ার বিক্রি করেছে। কাগজ-কলমে ১০ টাকায় শেয়ার বিক্রি হলেও ১৫ থেকে ৩০ টাকায় শেয়ার বিক্রি করে মালিকদের এবং কিছু প্রতিষ্ঠানের পকেট ভারী করছে। এ বিধান সংশোধনের পর সে সুযোগ আর থাকবে না।

শেয়ারবাজার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক আবু আহমেদ বলেন, প্লেসমেন্ট ও আইপিও বাণিজ্য পুরো বাজারের স্থিতিশীলতা নষ্ট করেছে। এ বাণিজ্যের কারণে গত কয়েক বছরে যেসব মানহীন কোম্পানি বাজারে এসেছে, সেগুলোর কারণে এরই মধ্যে যে ক্ষতি হয়েছে তা পূরণে আরও কয়েক বছর লেগে যাবে। তবে শেয়ারবাজার উন্নয়নে সম্প্রতি যেসব উদ্যোগ নেয়া হয়েছে, শিগগির শেয়ারবাজারে সেসব উদ্যোগের সুফল দেখা যাবে বলে তিনি দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

শেয়ারবার্তা / মামুন

বাজার বিশ্লেষণ এর সর্বশেষ খবর

উপরে