ঢাকা, বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

ইন্দো-বাংলার ২ কোটি ৫৩ লাখ শেয়ার লক ফ্রি হচ্ছে বুধবার

২০১৯ মার্চ ১২ ০৭:০৫:৩৯
ইন্দো-বাংলার ২ কোটি ৫৩ লাখ শেয়ার লক ফ্রি হচ্ছে বুধবার

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিউটিক্যালসের অল্টারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড ও প্লেসমেন্ট হোল্ডারদের কাছে থাকা ২ কোটি ৫৩ লাখ ৩১ হাজার শেয়ার লক-ইন ফ্রি হচ্ছে ১৩ ফেব্রুয়ারি বুধবার।

কোম্পানিটির আইপিও প্রসপেক্টাস ইস্যু হয় ২০১৮ সালের ১৩ মার্চ। মোট শেয়ার সংখ্যা ছিল ৯ কোটি ৩০ লাখ। এর মধ্যে উদ্যোক্তা পরিচালকসহ ৩ বছরের লক-ইন শেয়ার ৪ কোটি ৭৬ লাখ ৬৯ হাজার, অল্টারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড ও প্লেসমেন্ট হোল্ডারদের শেয়ার ২ কোটি ৫৩ লাখ ৩১ হাজার এবং আইপিও শেয়ার ২ কোটি। অল্টারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড ও প্লেসমেন্ট হোল্ডারদের কাছে থাকা ২ কোটি ৫৩ লাখ ৩১ হাজার শেয়ারের লক-ইন থাকে ১ বছর। যার মেয়াদ /লক-ইন ফ্রি শেষ হবে আগামীকাল বুধবার। পাবলিক ইস্যু রুলস অনুসারে, প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজারে আসা কোম্পানিতে বিনিয়োগ করা অল্টারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড ও প্লেসমেন্ট হোল্ডারদের কাছে থাকা শেয়ার লক-ইন ফ্রি হয় ১ বছর পর। আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ শেয়ারের ওপর কোন ধরনের লক-ইন থাকে না। আর অবশিষ্ট ৫০ শতাংশ শেয়ারের মধ্যে ২৫ শতাংশের ওপর ৬ মাস এবং বাকি ২৫ শতাংশের ওপর ৯ মাসের লক ইন থাকে।

প্রসপেক্টাস ইস্যুর তারিখ থেকে লক-ইন হিসাব করা হয়। ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরে ইন্দো-বাংলা ফার্মার পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা করে। এর পুরোটাই বোনাস লভ্যাংশ। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৩৫ পয়সা। আর শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৪ টাকা ১৯ পয়সা। আর দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর,১৮) শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৩৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে আয় ছিল ২৮ পয়সা। এদিকে শেষ ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর,১৮) কোম্পানির আয় হয়েছে ৭১ পয়সা। আগের বছর একই সময় আয় ছিল ৫৯ পয়সা। ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ শেষে শেয়ার প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১২ টাকা ৭৪ পয়সা।

এ ক্যাটাগরির কোম্পানিটি ২০১৮ সালেই পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। কোম্পানির মোট শেয়ারের ৫১.২৬ শতাংশই রয়েছে উদ্যোক্তা পরিচালকদের কাছে। বাকি শেয়ারের ৩২.১৯ শতাংশ রয়েছে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে, বিদেশী বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে দশমিক ০১ শতাংশ, আর ১৬.৫৪ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে।

শেয়ারবার্তা / মামুন

সংবেদনশীল তথ্য এর সর্বশেষ খবর

উপরে