ঢাকা, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯, ৯ বৈশাখ ১৪২৬

পাঁচ দিনে বার্জারের দর বেড়েছে ২৫ শতাংশের বেশি

২০১৯ ফেব্রুয়ারি ১০ ০৬:৫৩:৩০
পাঁচ দিনে বার্জারের দর বেড়েছে ২৫ শতাংশের বেশি

প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) তালিকাভুক্ত কোম্পানি বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেড বিদায়ী সপ্তাহে দর বৃদ্ধির তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ২৫ দশমিক ৩৪ শতাংশ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্রমতে, বিদায়ী সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে ১০ কোটি ২৫ লাখ ৭৯ হাজার ৮০০ টাকার শেয়ার। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ ৫১ কোটি ২৮ লাখ ৯৯ হাজার টাকা।

২০১৮ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত সমাপ্ত হিসাববছরে কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের ২০০ শতাংশ নগদ ও ১০০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। ওই সময় শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) করেছে ৭৭ টাকা ১০ পয়সা ও শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) ২৮৪ টাকা ১১ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে ১৭৮ কোটি ৭৮ লাখ ৯০ হাজার টাকা।

সর্বশেষ কার্যদিবসে ডিএসইতে শেয়ারদর ছয় দশমিক ২৫ শতাংশ বা ১০৮ টাকা ৫০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ এক হাজার ৮৪৫ টাকা ৩০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল এক হাজার ৮৪৪ টাকা ৬০ পয়সা। দিনজুড়ে ৮৮ হাজার ৯২৪টি শেয়ার মোট দুই হাজার ৪৩৬ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ১৬ কোটি ছয় লাখ ৩২ হাজার টাকা। দিনজুড়ে শেয়ারদর সর্বনিম্ন এক হাজার ৭৫২ টাকা থেকে সর্বোচ্চ এক হাজার ৮৪৫ টাকা ৩০ পয়সায় হাতবদল হয়। এক বছরে শেয়ারদর এক হাজার ১০১ টাকা ২০ পয়সা থেকে তিন হাজার ৬৯০ টাকার মধ্যে ওঠানামা করে।

‘এ’ ক্যাটেগরির এ কোম্পানি ২০০৬ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। ৩১ মার্চ ২০১৭ সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে কোম্পানিটি ৬০০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। এ সময় ইপিএস হয়েছে ১০৯ টাকা এবং এনএভি ২৪৯ টাকা ৫১ পয়সা। এটি আগের বছর অর্থাৎ ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর সময় ছিল যথাক্রমে ৬৪ টাকা ৩৭ পয়সা ও ১৮৬ টাকা ৪২ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে ২৪৯ কোটি ৪৯ লাখ ৮০ হাজার টাকা, যা আগের বছর (২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর) ছিল ১৪৯ কোটি ২৭ লাখ ৭০ হাজার টাকা।

কোম্পানিটির ১০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৪৬ কোটি ৩৭ লাখ ৮০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ৬২৪ কোটি ১২ লাখ ৯০ হাজার টাকা।

কোম্পানিটির মোট চার কোটি ৬৩ লাখ ৭৭ হাজার ৮৮০টি শেয়ার রয়েছে। মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকের কাছে ৯৫ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক এক দশমিক ৯৫ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারী এক দশমিক ৩৮ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে এক দশমিক ৬৭ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

শেয়ারবার্তা / মামুন

বাজার বিশ্লেষণ এর সর্বশেষ খবর

উপরে