ঢাকা, বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬

অবশেষে আনলিমা ইয়ার্নের পিছুটান

২০১৮ ডিসেম্বর ২৪ ১৪:৫৮:৫৭
অবশেষে আনলিমা ইয়ার্নের পিছুটান

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি আনলিমা ইয়ার্নের শেয়ারদর ১১ কার্যদিবসে বেড়েছে ৪৭ শতাংশ। কিন্তু শেয়ারদর অস্বাভাবিকভাবে বাড়ার পেছনে কোনো মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই জানিয়েছে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ। ১২ কার্যদিবসের মাথায় কোম্পানিটির শেয়ারদর পিছুটান দিয়েছে।

কোম্পানি কর্তৃপক্ষ বলছে, হঠাৎ করে এমন অস্বাভাবিক দর বৃদ্ধিতে তাদের কাছে কোনো অপ্রকাশিত তথ্য নেই। কোম্পানি সচিব জাহাঙ্গীর আলম বিডিক্যাপকে জানান, ডিএসইও জানতে চেয়েছিলো কোনো মূল্য সংবেদনশীল তথ্য আছে কিনা। তবে আমাদের কাছে এই দর বৃদ্ধির কোনো কারণ নেই। কোনো ব্যবসা সম্প্রসারণ কিংবা নতুন প্রোডাক্ট চালু, মেশিন কেনা বা যে কোনো মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই। এই দর বৃদ্ধি কেন হচ্ছে তা আমরা জানি না।

গত ৪ ডিসেম্বর কোম্পানিটির শেয়ার দর ছিল ৩০ টাকা ৯০ পয়সা। আর রোববার লেনদেন শেষে কোম্পানির শেয়ার দর দাঁড়িয়েছে ৪৫ টাকা ৪০ পয়সা। সেই হিসাবে আলোচ্য সময়ের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১৪ টাকা ৫০ পয়সা বা ৪৭ শতাংশ। আজ সোমবার এর শেয়ারদর ১ টাকা কমে ৪৪ টাকা ৫০ পয়সায় নেমেছে।

এদিকে আর্থিক প্রতিবেদনে দেখা যায়, প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটি লোকসান করেছে। প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই–সেপ্টেম্বর’১৮) কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১৯ পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর শেষে শেয়ার প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১১ টাকা ২ পয়সা।

৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরেও কোম্পানির আয় এর আগের বছরের তুলনায় কমেছে। আলোচ্য বছরে কোম্পানির মোট উৎপাদন ছিল ৯ লাখ ৩৯ হাজার ৬৭৫ কেজি ইয়ার্ন অ্যান্ড থ্রেড। যা এর আগের বছর ছিল ১০ লাখ ৪ হাজার ২৭২ কেজি। এসময় কোম্পানির কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ৯৮ লাখ ৫২ হাজার টাকা। যা এর আগের বছর ছিল ১ কোটি ১৪ হাজার টাকা।

কোম্পানির মোট সেলস হয়েছে ১৮ কোটি ৩০ লাখ ৩৪ হাজার টাকার। যা এর আগের বছর ছিল ১৮ কোটি ১৪ লাখ ২২ হাজার টাকা। কোম্পানির শেয়ার প্রতি ইপিএস হয়েছে ৫৫ পয়সা। যা এর আগের বছর ছিল ৫৬ পয়সা।

কোম্পানিটির অনুমোদিত মূলধন ২০ কোটি টাকা। আর পরিশোধিত মূলধন ১৭ কোটি ৮৬ লাখ ৮০ হাজার টাকা। মোট শেয়ার সংখ্যা ১ কোটি ৭৮ লাখ ৬৭ হাজার ৮০০টি।

এ ক্যাটাগরির কোম্পানিটি ১৯৯৭ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। কোম্পানির মোট শেয়ারের ৪৭.২২ শতাংশ শেয়ার রয়েছে উদ্যোক্তা পরিচালকের কাছে। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর কাছে রয়েছে ৬.০৯ শতাংশ এবং ৪৬.৬৯ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে।

শেয়ারবার্তা / মামুন

কোম্পানী সংবাদ এর সর্বশেষ খবর

উপরে