ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

‘মার্জিন ঋণ পুঁজিবাজারের সব শ্রেণির লোকদের কষ্ট দিয়েছে’

২০১৮ মার্চ ১২ ২১:০৪:৩২
‘মার্জিন ঋণ পুঁজিবাজারের সব শ্রেণির লোকদের কষ্ট দিয়েছে’

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নির্বাহী পরিচালক ও মূখপাত্র মো: সাইফুর রহমান বলেছেন, মার্জিন ঋণ পুঁজিবাজারের বড় ব্যাধি। এই ব্যধি পুঁজিবাজারের সব শ্রেণীর লোকদের অনেক কষ্ট দিয়েছে।

যমুনা ব্যাংক ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্টের প্যানেল ব্রোকারদের প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। প্রতিষ্ঠানটির ১৭টি প্যানেল ব্রোকারদের নিয়ে এ কর্মশালার আয়োজন করে। আজ (সোমবার) যমুনা ব্যাংককের ট্রেনিং অ্যাকাডেমিতে এ প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রশিক্ষণ কর্মমালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ও ব্যাংকের অতিরিক্ত ব্যবস্থনা পরিচালক মির্জা ইলিয়াছ উদ্দিন আহমেদ। প্রশিক্ষণ কর্মশালার সভাপতিত্ব করেন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আল-তামাস।

সাইফুর রহমান বলেন, মার্জিণ ঋণ পুঁজিবাজারের জন্য বড় ব্যাধি। ২০১০ সালের বাজার ধ্বসের কয়েকটি কারণের মধ্যে এটি ছিল অন্যতম। এক সময় মার্জিণ ঋণের পরিমাণ ১ অনুপাত ২ থাকলেও বর্তমানে ১ অনুপাত দশমিক ৫ নির্ধারণ করেছে কমিশন।

মির্জা ইলিয়াছ উদ্দিন আহমেদ বলেন, মুদ্রা বাজার, সিকিউরিটিজ বাজার ও ডেফথ (বন্ড) মার্কেট নিয়ে হলো দেশের অর্থনীতি। মুদ্রা বাজার ও সিকিউরিটিজ বাজারের ভারসাম্য করে বন্ড মার্কেট। আমাদের দেশে এই গুরুত্বপূর্ণ বাজারটি নেই। ফলে বিনিয়োগকারীরাও বাজারের সঙ্গে তাল মেলাতে পারে না।

তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, আমাদের বাজারের গভীরতা বাড়ানোর জন্য কাজ করছে কমিশন। নতুন পন্য বাজারে যুক্ত হলে বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগের জন্যও নতুন জায়গা পাবে বলে মনে করেন তিনি।

তার কথার সঙ্গে তাল মিলিয়ে সাইফুর রহমান বলেন, আমাদের বাজার হলো ইক্যুইটি নির্ভর। পুঁজিবাজারে নতুন পণ্য চালু করার বিষয়ে কাজ চলছে। কমিশন স্মল ক্যাপ, ইটিএফ, ডেরিভেটিভস নিয়ে কাজ করছে। ২০২১ সাল নাগাদ ডেরিভেটিভস চালু করার পরিকল্পনা কমিশনের আছে। প্রশিক্ষণ কর্মশালায় বিএসইসির কমপ্লায়েন্স সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন তিনি।

আল-তামাস বলেন, পুঁজিবাজারের গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো কমপ্লায়েন্স। এই বিষয়টি নিয়ে আমাদের প্যানেল ব্রোকারদের জন্য প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়েছে। এই কর্মশালায় আমাদের ১৭টি প্যানেল ব্রোকারের সবাই অংশগ্রহণ করেছে।


শেয়ারবার্তা/ জুয়েল

বাজার বিশ্লেষণ এর সর্বশেষ খবর

উপরে