ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ জুন ২০১৮, ৮ আষাঢ় ১৪২৫

দরবৃদ্ধির শীর্ষে থাকা কোম্পানি এখন দর হ্রাসের শীর্ষ তালিকার নিত্যসঙ্গী

২০১৮ মার্চ ১২ ১৭:৫৬:৩৯
দরবৃদ্ধির শীর্ষে থাকা কোম্পানি এখন দর হ্রাসের শীর্ষ তালিকার নিত্যসঙ্গী

২০১৭ সালে পুঁজিবাজারে উল্লম্ফনের নেপথ্যে ছিল ব্যাংকখাত। সে সময় এ খাতের ৫৯ দশমিক ৪ শতাংশ কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে। ব্যাংকের লেনদেনযোগ্য (ফ্রি-ফ্লোট) শেয়ার বেশি থাকায় সূচক বাড়াতে অগ্রনী ভূমিকা রাখে। তবে চলতি বছর এর বিপরীত চিত্র দেখা গেছে। গত বছর দরবৃদ্ধির শীর্ষে থাকা খাতগুলো এবার দরহ্রাসের শীর্ষ তালিকায় রয়েছে। আর দরহ্রাসের শীর্ষে রয়েছে ব্যাংক খাত। চলতি বছরের এ পর্যন্ত ব্যাংক খাতে ১৬ শতাংশের বেশি বাজার মূলধন গায়েব হয়ে গেছে।

২০১৭ সালের ডিসেম্বর শেষে ব্যাংকখাতের বাজার মূলধন ছিল ৭৪ হাজার ৬০০ কোটি টাকা। এরপর টানা দরপতনে ৬২ হাজার ৪০০ কোটি টাকায় নেমে আসে। এ হিসেবে চলতি বছরের ১১ মার্চ পর্যন্ত ব্যাংক খাত ১২ হাজার ২০০ কোটি টাকা বা ১৬ দশমিক ৩ শতাংশ বাজার মূলধন হারিয়েছে। যদিও এ খাতটির হিসাব বছর শেষে লভ্যাংশ ঘোষণার অপেক্ষায় রয়েছে। এ সময় সাধারণত শেয়ার দর বাড়ার কথা। গত বছরের এ সময়ে এ খাতটির শেয়ার দরে ইতিবাচক ধারা বজায় ছিল। তবে চলতি বছর এর বিপরীত চিত্র দেখা যাচ্ছে।

এদিকে চলতি বছরের শুরু থেকে পুঁজিবাজারে যে অস্থিরতা চলছে, তাতে আজ ১২ মার্চ পর্যন্ত ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্য সূচকটি ৮.০৫ শতাংশ হারিয়েছে। আজ ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচকটি ৫৭ পয়েন্ট হারিয়ে ৫৭০৫ পয়েন্টে নেমে এসেছে। সূচক পতনে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখছে ব্যাংক ও ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক খাত। চলতি বছর এ দুই খাতের শেয়ার দর টানা কমতে দেখা গেছে।


মূলত বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর তারল্য সঙ্কট, সুদের হার বৃদ্ধি ও ডিএসইর কৌশলগত শেয়ার নিয়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থার সঙ্গে মুখোমুখি অবস্থান পুঁজিবাজারে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ না থাকায় বাজারে মূল্যসূচকের পতন ত্বরান্বিত হচ্ছে। গত কয়েকদিন রাস্ট্রায়ত্ব বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান আইসিবি শেয়ার ক্রয়ে প্রধান ভূমিকা রাখলেও প্রতিষ্ঠানটির সক্ষমতাও এখন কমে গেছে। ফলে বাজারে ক্রেতাসঙ্কটের প্রভাব পড়েছে।

চলতি বছর ব্যাংক খাতের পাশাপাশি ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক খাতে সবচেয়ে বেশি বাজার মূলধন হারিয়েছে। ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক খাতে চলতি বছর প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা বাজার মূলধন হারিয়েছে। ২০১৭ সালের ২৮ ডিসেম্বর এ খাতটির বাজার মূলধন ছিল ২৪ হাজার ৪২০ কোটি টাকা, যা আজ নেমে এসেছে ২০ হাজার কোটি টাকার নিচে। এ হিসেবে চলতি বছর এ খাতটি ১৪ শতাংশের বেশি দর হারিয়েছে। যদিও গত বছর এ খাতটির বাজার মূলধন ৫২ শতাংশ বেড়েছিল।

শেয়ারবার্তা / মামুন

বাজার বিশ্লেষণ এর সর্বশেষ খবর

উপরে